যদি বেঁচে উঠতে পারি, প্রথমেই আমি… - দৈনিক মুক্ত আওয়াজ
ঢালিউডবিনোদন

যদি বেঁচে উঠতে পারি, প্রথমেই আমি…

বিনোদন প্রতিবেদক : প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে নাকাল গোটা বিশ্ব। ভাইরাসটির সংক্রমণ ঠেকাতে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন দেশে লকডাউন করা হয়েছে। বাংলাদেশেও চলছে লকডাউন। দেশের বেশির ভাগ মানুষ এখন ঘরবন্দী।

প্রায় এক মাস ধরে স্বেচ্ছায় ঘরবন্দী হয়ে আছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তানজিন তিশাও। পরিবারের সঙ্গেই সময়গুলো কাটাচ্ছেন তিনি। তবে অভিনয়ের ব্যস্ততাকে ইদানিং খুব মিস করছেন বলে জানিয়েছেন এই অভিনেত্রী।

দৈনিক মুক্ত আওয়াজ অনলাইনকে তানজিন তিশা বলেন, ‘অনেক দিন ধরেই ঘরে আছি। প্রথম দিকে রান্না নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। নতুন স্বাদের অনেক খাবার পরিবারের সদস্যদের সামনে পরিবেশন করেছি। তবে এখন রান্নায় কম সময় দেওয়া হয়। ইদানিং ফেলে আসা শুটিংয়ের ব্যস্ততাকে খুব মিস করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অভিনয় নিয়ে ব্যস্ত থাকতাম। এটা ছিল আমাদের প্রতিদিনের রুটিন। সেই দিনগুলো ইদানিং খুব মনে পড়ছে। শুধু আমিই না, আমরা যারা অভিনয় করি সবাই, আবার কবে শুটিংয়ে যাবো- সেই দিনটার অপেক্ষায় আছি। তবে শুটিংয়ে ব্যস্ততার কারণে পরিবারকে সময় দিতে পারিনি এতদিন। এমন কি ওই সময়ে ঠিকমতো ঘুমও হয়নি। এখন অনেক সময়, এই সুযোগে পরিবারের সঙ্গে আড্ডা আর ঘুম পুষিয়ে নিচ্ছি। সঙ্গে বই পড়ছি, মুভি দেখছি এসব করে আপাতত চলছে।’

করোনার এই সময়গুলো কেটে গেলে সবার আগে এই শহরটা দেখতে চান তিশা। তার ভাষ্য, ‘মনে হচ্ছে কত কাল এই শহরটাকে দেখি না। যদি বেঁচে উঠতে পারি, প্রথমেই আমি শহরটাকে আবার নতুন করে দেখতে চাই।’

সবশেষে সবার উদ্দেশে তানজিন তিশা বলেন, ‘প্রতিটি মানুষই সবার আগে নিজের ও পরিবারের সুরক্ষার কথা ভেবে থাকেন। করোনার এই সময়ে নিজের ও পরিবারের জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। অযথা বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। আমরা যদি সচেতন না হই তাহলে সামনে বড় বিপদ আছে।’

Comment here

Facebook Share